দুই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে প্রকাশিত সংবাদের ভুল শিকার করল সখীপুর রিপোটার্স ইউনিটি


admin প্রকাশের সময় : মার্চ ২৬, ২০২৪, ৭:০১ পূর্বাহ্ন /
দুই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে প্রকাশিত সংবাদের ভুল শিকার করল সখীপুর রিপোটার্স ইউনিটি

দুই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে প্রকাশিত সংবাদের ভুল শিকার করল সখীপুর রিপোটার্স ইউনিটি

টাঙ্গাইলের সখীপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির সহ সভাপতি সাদিক বিপ্লব ও ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক খান আহম্মেদ হৃদয় পাশাকে ২৩ মার্চ সন্ধ্যায়, সাংগঠনিক শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে সাময়িক বহিষ্কার নোটিশ দেওয়া হয়।

পরে উক্ত সংগঠনের কিছু সদস্য তাদের নিজস্ব পত্রিকায় ভুল তথ্য উপস্থাপন করে সংবাদ প্রচার করে,যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় ওঠতে থাকে,
ও মিথ্যা অপপ্রচার দিয়ে সংবাদ প্রচার করায়,তাৎক্ষণিক ভাবে নিজেদের ফেইসবুকে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান দুই বহিস্কৃত সাংবাদিকগণ।

এদিকে “শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে দুই সাংবাদিক বহিষ্কার” না লিখে (চাঁদাবাজির অভিযোগে দুই সাংবাদিক বহিষ্কার) এমন মিথ্যা ও ভিত্তি হীন তথ্য উপস্থাপন করে সংবাদ প্রচার করায়, নানাবিধভাবে প্রশ্নবিদ্ধ হয় সখীপুর রিপোর্টার্স ইউনিটি।

যে কারণে ২৫ মার্চ বিকেলে রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি মোঃ শরিফুল ইসলাম,সাধারণ সম্পাদক আব্দুল লতিফ মাস্টার,যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আহমেদ সাজু ও সদস্য ইলিয়াস কাশেম সহ ইউনিটির অন্যয়ান্য সাংবাদিকগণের উপস্থিততে সাংগঠনিক শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে সাময়িকভাবে বহিস্কৃত সাংবাদিক সাদিক বিপ্লব ও খান আহম্মেদ হৃদয় পাশা সাংগঠনিক শৃঙ্খলা ভঙ্গ ছাড়া, কোন প্রকার চাঁদাবাজি কিংবা অন্য কোন প্রকার অভিযোগে অভিযুক্ত নয় এমন মন্তব্য করে একটি ব্রিফ দেন।
এবং দুই সিনিয়র সাংবাদিকদের বহিষ্কারের বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে হটকারি সিদ্ধান্ত নেওয়ার ব্যাপারে দুঃখ প্রকাশ করেন।
এসময় উপস্থিত সখীপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি ও সম্পাদক,সহ সম্পাদক বলেন,আমরা ভুল তথ্য উপস্থাপন করে সংবাদ প্রচার হওয়ায় সখীপুর রিপোর্টার্স ইউনিটির পক্ষ থেকে আন্তরিক ভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি। খুব দ্রুতই সংগঠনের সকল সদস্য নিয়ে একটি জরুরী মিটিং সকল সমস্যার সমাধানসহ সবাই মিলেমিশে আমরা একত্রে কাজ করব ইনশাআল্লাহ।

এছাড়াও ইউনিটির সাংবাদিকদের ভুল তথ্য উপস্থাপন করে সংবাদ প্রচার না করার অনুরোধ জানান তারা।

সে সময় ইউনিটির সাধারণ সদস্য ইলিয়াস কাশেম তার পত্রিকায় প্রকাশিত ভুল তথ্য উপস্থাপন করায় দুঃখ প্রকাশ করেন।

বিঃদ্রঃ একটি ভিডিও বার্তায় এসব তথ্য দেন সখীপুর রিপোর্টার্স ইউনিটি।

ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন।