অবহেলিত মুক্তিযোদ্ধাদের স্বীকৃতি এবং স্থায়ী বন্দোবস্তের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন


admin প্রকাশের সময় : মে ৩১, ২০২৩, ৮:১১ অপরাহ্ন /
অবহেলিত মুক্তিযোদ্ধাদের স্বীকৃতি এবং স্থায়ী বন্দোবস্তের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

টাঙ্গাইলের সখীপুরে একাত্তরের যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী অবহেলিত মুক্তিযোদ্ধাদের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি,তাদের বাসস্থানের স্থায়ী বন্দোবস্ত এবং আদিবাসি ক্ষুদ্র নৃ গোষ্ঠীদের বসতভিটা উচ্ছেদ বন্দের আইন প্রণয়নের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে। বুধবার ৩১ মে সকাল ১০টায় উপজেলার নলুয়া মন্দিরপাড় এলাকায় এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ ক্ষুদ্র সংখ্যা লঘু আদিবাসী সংগঠন এবং ৭১ এর অবহেলিত মুক্তিযোদ্ধা সংগ্রাম পরিষদ এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। সম্মেলনে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র সংখ্যা লঘু আদিবাসী সংগঠন এবং ৭১ এর অবহেলিত মুক্তিযোদ্ধা সংগ্রাম পরিষদের কেন্দ্রিয় কমিটির সভাপতি সন্যাসী রমেশ কুমার কোচের সভাপতিত্বে সখীপুরে অবহেলিত মুক্তিযোদ্ধাদের স্বীকৃতি এবং স্থায়ী বন্দোবস্তের দাবিতে সখীপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমাÐের সাবেক কমাÐার বীর মুক্তিযোদ্ধা এমও গণি, সাবেক কমাÐার বীরমুক্তিযোদ্ধা মতিউর রহমান,যাদবপুর ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমাÐার বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. নুরুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা শামছুল আলম, অবহেলিত মুক্তিযোদ্ধাদের পক্ষে মোঃ রফিকুল ইসলাম, বাবুল চন্দ্র সরকার, ইউসুফ আলী, ফজিলা আক্তার, জাহানারা পারভীন, মনির হোসেন, আব্দুর রশিদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। এছাড়াও সংবাদ সম্মেলনে অবহেলিত মুক্তিযোদ্ধা তাদের পরিবার ও আদিবাসী নেতারা অংশ নেন।

এ সময় বক্তারা বলেন. দেশ স্বাধীন হয়েছে ৫২বছর। এখনো ৭১এ যুদ্ধে অংশ নেয়া সখীপুরসহ সারাদেশে প্রায় শতাধিক মুক্তিযোদ্ধা রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি পাননি। বহু যুদ্ধাহুত মুক্তিযোদ্ধা রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি না পেয়ে মানবেতর জীবন যাপন করেছেন এবং অনেকে মৃত্যু বরণ করেছেন। এই ৫২ বছরেও রাষ্ট্র তাদের স্বীকৃতি দেননি। তাঁরা অভিলম্বে ওইসব অবহেলিত মুক্তিযোদ্ধাদের রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি ও তাদের স্থায়ী বন্দোবস্তের দাবি করেন। এছাড়াও বক্তারা বনবিভাগ কর্তৃক আদিবাসীদের বসতভিটা উচ্ছেদ বন্দের আইন প্রনয়ণের দাবিও জানান।